দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের প্রথম ভিডিও নিউজ পোর্টাল

ইউএন ওমেনের আয়োজনে পুরস্কার বিতরণ - চ্যানেল খুলনা

খুলনা, ১১ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, শনিবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২০

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
দিন
:
ঘণ্টা
:
মিনিট
:
সেকেন্ড

 সর্বশেষ সংবাদ:

ইউএন ওমেনের আয়োজনে পুরস্কার বিতরণ

প্রকাশিত হয়েছে: শুক্রবার, ১০ জানুয়ারি ২০২০, ৬:৪৭ : অপরাহ্ণ

চ্যানেল খুলনা ডেস্কঃসহিংসতা প্রতিরোধে, পুরুষ আছে নারীর সাথে’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ইউএন ওমেন, বাংলাদেশ আয়োজিত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রতিযোগিতায় জয়লাভ করে পুরষ্কার অর্জন করেছেন তিন তরুণ চলচ্চিত্র নির্মাতা। সম্প্রতি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তমঞ্চে ‘সিক্সটিন ডেইজ অব এক্টিভিজম’ এর অংশ হিসেবে দিনব্যাপী ‘সিক্সটিন ডেইজ ফেয়ার’ আয়োজিত হয়। উক্ত আয়োজনে এই পুরষ্কার প্রদান করা হয়।

প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করেছেন উদয় বাঙালী। তার স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের নাম ‘সমানুপাতিক’। ‘আলো’ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করে ২য় স্থান অধিকার করেছেন আহমেদ জামান শিমুল এবং ‘ফুলের নাম মালতি’ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করে ৩য় স্থান অধিকার করেছেন সোহেল আরিয়ান।

বিজয়ীদের যথাক্রমে ৩০ হাজার, ২০ হাজার ও ১০ হাজার টাকা সম্মাননা পুরষ্কার প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইমরান কবির চৌধুরী। চলচ্চিত্র প্রতিযোগিতার পুরস্কার প্রদান ছাড়াও আয়োজনের মধ্যে আরও ছিলো বিতর্ক অনুষ্ঠান, একক বক্তৃতা, আবৃত্তি, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় থিয়েটার দলের নাটক। এই অনুষ্ঠানে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে উদ্ভাবিত অ্যাপস এর বিজয়ীরা তাদের উদ্ভাবনীগুলো প্রদর্শন করেন। লিঙ্গভিত্তিক সহিংসতা বর্তমান বিশ্বে একটি বড় সমস্যা। এই সমস্যা সমাধানে বিশ্বব্যাপী গড়ে উঠছে নানা আন্দোলন। এসব আন্দোলন সব সময় প্রতিকূল পরিবেশের মধ্য দিয়েই গেছে। বর্তমানে যে রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডল সৃষ্টি হয়েছে, সেখানে নারী আন্দোলনকে চালিয়ে নিয়ে যাওয়াও কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে।

অনেক কঠোর আইন রয়েছে। তবে আইনগুলোর বাস্তবায়ন হচ্ছে না। এ ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় ও বেসরকারি পর্যায়ে অনেক গুণগত পরিবর্তনের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। এই ধারাবাহিকতায় সহিংসতা প্রতিরোধে ইউএন ওমেন বিশ্বব্যাপী নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। বাংলাদেশেও লিঙ্গভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে ব্যক্তি, পরিবার, প্রতিষ্ঠান ও সমাজ পর্যায়ে ব্যাপক পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। এজন্য সর্বসাধারণের মাঝে বিষয়গুলোকে স্পষ্ট করে তুলে ধরে সামাজিক সচেতনতা
বৃদ্ধি করার ক্ষেত্রে চলচ্চিত্র একটি শক্তিশালী গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হিসেবে কাজ করে।